1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. satvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন
  •                          

হাওরাঞ্চলের কথা ইপেপার

ব্রেকিং নিউজ
সিলেটে পাথরবাহী ট্রাকের ভিতরে ২৪৫ বস্তা ভারতীয় চিনিসহ একজনকে আটক করেছে শাহপরান থানা পুলিশ বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে বন্যার্তদের উদ্ধার ও টানা খাদ্য সামগ্রী বিতরন চালিয়ে যাচ্ছে সুনামগঞ্জের বন্যার্তদের শুকনো খাবার দিলেন ঢাকাস্থ জালালাবাদ এসোসিয়েশন গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ কর্তৃক ১৪৩ বস্তা ভারতীয় চিনি ও পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ২টি ট্রাকসহ একজনকে গ্রেফতার জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশের উদ্যোগে বন্যার্থদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ কানাইঘাট থানা পুলিশ উদ্যোগে বন্যার্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ সিলেটের বন্যা প্রতিরোধে সুরমা নদীতে ড্রেজিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে— পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী সিলেটে চিনি কান্ডে জড়িত থাকায় বিয়ানীবাজার ছাত্রলীগের উপজেলা ও পৌর কমিটি বাতিল করেছে কেন্দ্রীয় কমিটি মাধবপুরের মোটরসাইকেল চালক থেকে মাদক সম্রাট মানিকের উত্থানের গল্প চরমহল্লা আইডিয়াল স্কুলের ১০৯ জন শিক্ষার্থীকে রক্তের গ্রুপ জানিয়ে দিয়েছে বাঁধন

হঞ্জিগঞ্জে হোটেল শ্রমিকের বাড়ীঘরে ভাংচুর হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে শনিবার, ৫ আগস্ট, ২০২৩
  • ৬১ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার: হবিগঞ্জের সদর উপজেলার মশাযান গ্রামে হোটেল শ্রমিকের বাড়ীতে হামলা ভাংচুর,লুটপাট ও কুপিয়ে জখমের ঘটনায় এখনও পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি। আসামীরা বাদীকে প্রাণ নাশের হুমকি। মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে হোটেল শ্রমিক আলমগীর(৩০), তার স্ত্রী আখি বেগম(২৪) ও প্রতিবন্ধী শিশু রায়হান (২) কে কুপিয়ে গুরুতর জখমের ঘটনায় থানায় মামলা হলেও ধরা ছোয়ার বাইরে আসামীরা। ঘটনাটি ঘটে গত ২৮ জুলাই শুক্রবার রাত ৮ঘটিকার সময় আমির আলীর বসতবাড়ীতে। এ ঘটনার আহত আলমের পিতা আমির আলীর সাথে জায়গা জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আসামীরা তাদের উপর হামলা করেছিল। এই হামলা ও বিদেশ থেকে টাকা আসার খবর পেয়ে ইছুব আলীর নেতৃত্বে তার দুই পুত্র, স্ত্রীসহ হামলার পরিকল্পনা করে এবং হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করে।
মামলা ও স্থানীয় সুত্র জানায়, একই গ্রামের ইছুব আলীর দুই পুত্র জাহির আলী ও জাহেদ আলী এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও একাধিক মামলার আসামী। অন্যের জায়গা জমি পূর্ব শত্রুুতার জের ধরে গেল ২৮ জুলাই হোটেল শ্রমিক আলমের বসতঘরে ঢুকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আলমের পিঠে, মাথার বাম সাইটে, বাম হাতে, তলপেটে কিরিছ দিয়ে কুপাতে থাকলে তার স্ত্রী আখি বেগম আগাইয়া আসেন এবং স্বামীর জীবন বাচাঁতে স্বামীর উপর ঝাপিয়ে পড়েন সন্ত্রাসীরা আখি বেগমের তলপেটে ও লজ্জাস্থানে কিরিছ দিয়ে গাই মেরে গুরুতর জখম করে এবং প্রশ্রাবের রাস্তা ও মল ত্যাগের রাস্তা এক হয়ে যায়। এ সময় দুই বছরের প্রতিবন্ধী অবুঝ শিশুটিকেও মাথায় কুপ দিয়ে গুরুতর জখম করে। গুরুতর আহত হোটেল শ্রমিক আলম জানায়, ঘটনার তিন চারদিন পূর্বে তার ভাই ফ্রাঞ্চ থেকে ৪ লাখ টাকা পাঠানোর খবর পেয়ে আসামী জাহির আলী ও জাহেদ আলীর নেতৃত্বে ৭/৮জনের একটি সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী চক্র তাদের উপর হামলা চালায়। ঘরের ভিতর নগদ টাকা না পেয়ে আলমের স্ত্রীর কাছ থেকে আলমারীর চাবি নিয়ে ৫—৬ ভরি ওজনের স্বনার্লংকার নিয়ে যায়। আহতদের সুর চিৎকারে আশপাশের মানুষ খবর পেয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। রোগীদের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় হবিগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতাল থেকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে হোটেল শ্রমিক আলম, তার স্ত্রী আখি বেগম ও প্রতিবন্ধী শিশু রায়হান মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।
ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীণ গুরুতর আহত আলম জানান, আমাকেসহ আমার স্ত্রী ও প্রতিবন্ধী শিশুকে গুরুতরভাবে জখম করার পর থানায় মামলা দিলে আসামীরা প্রকাশ্যে ও ফেইসবুকে হুমকি দিচ্ছে যে, আমাকে কিংবা আমার পরিবারের কাউকে সুযোগমত পাইলে শেষ করে ফেলবে। আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে কিন্তু পুলিশ তাদেরকে ধরছে না।
এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মুর্তুজা জানান, আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ কাজ করছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করা যায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন