1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:২৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সিলেটে বাংলাদেশ নারী মুক্তি সংসদের জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জের শামীমসহ ‘দুই জঙ্গি’ ছিনতাই : বিভিন্ন স্থানে পুলিশের ব্লক রেইড আর্তমানবতার সেবায় রেড ক্রিসেন্ট অসাধারণ ভূমিকা রাখছে-নাসির উদ্দিন খান লায়ন্স ক্লাব এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ উন্নয়নের ক্ষেত্রে ভাটি এলাকা আর পিছিয়ে থাকবে না-পরিকল্পনামন্ত্রী এম. এ. মান্নান সিলেট মোটরসাইকেল পার্টস মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভা খালেদার বাসায় প্রবেশের সড়কে পুলিশের চেকপোস্ট বিজয়ের মাসে বাংলাদেশ বৌদ্ধ যুব পরিষদ’র উদ্যোগে সিলেটে শীতবস্ত্র দান সিলেট শহরতলীর দক্ষিণ সুরমায় অবৈধ শিলংতীর জুয়া ও মাদকের জমজমাট আসর কোম্পানীগঞ্জে রাতের আধাঁরে দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ল অটোরিকশা

সুনামগঞ্জ গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে সরকারী ভবন সংস্কার ও মেরামত কাজের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২২
  • ৩৪১ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি:

সরকারী ভবন মেরামত ও সংস্কার কাজের কোন ধরনের কাজ না করেই কয়েক কোটি টাকা লুটপাটের অভিযোগ গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মমিনুল হকের বিরুদ্ধে। আর এই লুটপাটে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী জুয়েল রানা। বিভিন্ন সুত্র জানায়,  চলতি অর্থ বছরে সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন সরকারী ভবন মেরামত ও সংস্কার কাজের জন্য সরকার বরাদ্দ দেয় প্রায় ৪ কোটি টাকা। বরাদ্দকৃত অর্থ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কাজ করার কথা থাকলেও উপ-সহকারী প্রকৌশলী জুয়েল রানার মাধ্যমে নাম মাত্র কাজ দেখিয়ে পুরো টাকাই আত্মসাৎ করা হয়েছে। আর বেশীরভাগ ভবনে কোন ধরনের কাছ না করেই হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি টাকা। গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর বাসভবন ও সীমানা প্রাচীর মেরামত ও সংস্কার করতে ৪ লাখ টাকা বরাদ্দ দিলেও কোন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে কাজ না দিয়ে উপসহকারী প্রকৌশলী জুয়েল রানার মাধ্যমে ভবণে ১৫ হাজার ও বাউন্ডারী রং করতে ২৫ হাজার টাকা সহ সব মিলিয়ে ৪০ হাজার টাকা খরচ করেই সমূহ টাকা লুটপাট করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলার পুরাতন কোর্ট ভবনগুলো মেরামত ও সংস্কারের জন্য বরাদ্দ দিলেও কোন ধরনের কাজ না করেই পুরো টাকাই লুপাট করেছেন নির্বাহী প্রকৌশলী মমিনুল হক। সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের পুরাতন ভবনের সার্ভিস লাইন আন্ডার গ্রাউন্ড করণ (রাস্তার অংশ) ও নব নির্মিত গেইটের বিদ্যুতায়নসহ জেনারেটর মেরামত করনের কাজ না করেই পুরো টাকা আত্মসাৎ করেছেন। সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালত ভবনের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এর এজলাসের টাইল্স, ফলস্ সিলিং ও স্যানিটারী মেরামত কাজ না করেই ৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। জেলা কারাগারের জেল সুপার অফিসের পুরাতন প্লাষ্টার নবায়নসহ সিভিল স্যানিটারী মেরামত না করেই ৩ লাখ টাকা, কারাগারের অভ্যন্তরের মেঝে ও টয়লেটে টাইল্স কাজ না করেই ৩ লাখ টাকা, কারাগার ক্যাম্পাসের পানির লাইন মেরামত, ফিটিংস ও পয়নিস্কাশন কাজ না করে প্রায় ৩ লাখ টাকা, কারাগারের ওয়াচ টাওয়ার ও ওভারহেড পোলের এলইডি ফ্লাড লাইট, স্ট্রীট লাইট ও ব্যারাকের বৈদ্যুতিক কাজ না করেই ২ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। সদর হাসপাতালের নতুন ভবনের বিভিন্ন ওয়ার্ডে বৈদ্যুতিক মেরামত না করেই ২ লাখ টাকা, ধর্মপাশা উপজেলার বাদশাগঞ্জ সাব-রেজিস্টারী অফিসের বাউন্ডারী ওয়াল মেরামত ও স্যানেটারী কাজ না করেই ৩ লাখ টাকা, জেলা ও দায়রা জজ আদালত ভবনের ছাদ সংস্কার না করেই ৮ লাখ টাকা, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ল্যাম্পপোষ্ট এ এলইডি ফ্লাড লাইটসহ ব্রেকার স্থাপন না করেই ২ লাখ টাকা, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের প্রত্যেক তলার অকেজো বৈদ্যুতিক ফিটিংস ও কন্ট্রোলিং ডিভাইজ পরিবর্তন করা করেই ২ লাখ টাকা লুট করা হয়েছে। এ ছাড়াও দিরাই উপজেলা কোর্ট ভবনের ভিতর বাহিরে রং করণ, দরজা জানালা নবায়নসহ এজলাসের সংস্কার না করেই পুরো বরাদ্দ আত্মসাৎ করা হয়েছে। বিশ্বম্ভরপুর পুরাতন কোর্ট ভবনের জন্য বার বার বরাদ্দ নিয়ে আসলেও কোন কাজ না করেই পুরো অর্থ আত্মসাৎ করার অভিযোগ রয়েছে। নির্বাহী প্রকৌশলী মমিনূল হক প্রায়ই অফিস ফাঁকি দিয়ে ঢাকায় বসে থাকার অভিযোগও দীর্ঘ দিনের। তার মোবাইল ফোন ট্রাকিং করা হলে অফিস ফাঁকির বিষয়টি বেরিয়ে আসবে বলে স্থানীয় ঠিকাদাররা জানিয়েছেন। এ ছাড়াও সুনামগঞ্জ গণপূর্ত অফিসের পার্শ্বে সরকারী কোয়ার্টারের ১০/১১টি বাসার ভাড়া গ্রহন করলেও সরকারী কোষাগারে জমা না দিয়ে নিজেই আত্মসাৎ করেছেন  নির্বাহী প্রকৌশলী মমিনুল হক।

গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জুয়েল রানার বক্তব্য জানতে বার বার মোবাইল ফোনে কল দিলে রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে নির্বাহী প্রকৌশলী মমিনুল হক কোন প্রকার অনিয়ম হয়নি দাবী জানিয়ে বলেন সরকারী ভবন মেরামত ও সংস্কার কাজ সঠিকভাবে করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সিলেট ওম প্রকাশ নন্দী জানান, সুনামগঞ্জ সরকারী ভবন মেরামত ও সংস্কার কাজে কোন ধরনের অনিয়ম করা হলে তদন্ত পূর্বক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন পূর্বক অনিয়মের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন