1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৩:৪৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সিলেট-সুনামগঞ্জ মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ শিক্ষকের মৃত্যু কবি আবদুন নূর’র ২য় কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উম্মোচন আন্তর্জাতিক সেবা দিতে ডুবাইতেও যাত্রা করলো এস. আল-মদিনা এয়ার ইন্টারন্যাশনাল সিলেটের কিন ব্রিজের পাশে আরেকটি সেতু নির্মাণ করা হবে-সিলেটে পররাষ্ট্র মন্ত্রী আইডিইবি সিলেট জেলা শাখার কমিটি গঠন মসরুর সভাপতি, রফিক সাধারণ সম্পাদক হ্যানিম্যান হোমিওপ্যাথি সোসাইটির ৮ম বর্ষপূর্তি ও সংবর্ধনা সিলেট গোলাপগঞ্জে ছাত্রলীগের সিভি সংগ্রহ, উচ্ছসিত নেতাকর্মীরা সিলেট কুমারগাঁও-বিমানবন্দর সড়কে ফোর লেন কাজের উদ্বোধন করলেন-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আজ বিটিবিতে গান গাইবেন সংগীত শিল্পী আফতাব জুড়ীতে চলন্ত গাড়িতে হঠাৎ আগুন

সুনামগঞ্জে চোর ভেবে পিঠিয়ে হত্যার পর বেওয়ারিশ হিসেবে দাফনের অভিযোগ

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে রবিবার, ৩০ মে, ২০২১
  • ১১৫৬ বার পড়া হয়েছে

 

বিশেষ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে দিনমজুরকে চোর ভেবে পিঠিয়ে হত্যার পর বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে দাফনের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটে গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার দক্ষিন বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে। নিহতের নাম আব্দুর রশিদ (৪৮)। সে তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের দক্ষিন মুখশেদপুর গ্রামের মৃত আব্দুল বারিকের পুত্র।

সুত্র জানায়, গত ১৯ মে ধান কাটার উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হয়ে উপজেলার বাকগাও গ্রামে যায় নিহত আব্দুর রশিদ। গরু চোর সন্দেহে তাকে বাকগাও গ্রামের রহিছ মিয়ার পুত্র ঝালু মিয়া ও তার ভাইয়েরা আটক করে মারপিট করেন এবং পরবর্তীতে তাকে রাত অনুমান ১০টার দিকে ইউপি চেয়ারম্যান এরশাদ মিয়ার কার্যালয়ে রেখে আসে। সেখানে ইউনিয়ন উদ্যোক্তা বদরুল তার বক্তব্য মোবাইলে রেকর্ড করেন এবং ডিউটিরত চকিদার রাত অনুমান ১২টায় তার মৃত্যূর সংবাদ ইউপি চেয়ারম্যানকে নিশ্চিত করেন। চেয়ারম্যান এরশাদ মিয়া বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশকে অবহিত করেন যে, একটি পাগল পরিষদের বারান্দায় মারা গেছে এবং তার লাশ পড়ে আছে।

বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশ উদ্ধার করে শনিবার সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসেন এবং লাশ ময়না তদন্ত শেষে স্থানীয় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে নিহতের কবরস্থ করা হয়।

ভিডিও সুত্রে দেখা যায়, দক্ষিন বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা বদরুল তাকে প্রশ্ন করলে সে উত্তর দেয় যে, তারবাড়ী মুখশেদপুর গ্রামে। সে কাজে এসেছিল এবং তার পাওনা ৫শ টাকা বেতন দেয় নাই। উল্টো তাকে গরু চোর ভেবে মারপিট করেছে। সে তার পরিচয় দিয়েছে স্বাভাবিকভাবেই। তাকে বলা হয়েছিল তুমি চোরের গ্রামের মানুষ। সে বলছে চোম্মাকমান্ডার মরে গেছে। চম্মাকান্ডার ছিলেন চোরের সরদার।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান এরশাদ মিয়া জানান, পরিষদের বারান্দায় অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ পড়ে থাকার খবর আমার চৌকিদার জানিয়েছিল এবং তদানুযায়ী বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশকে খবর দিয়ে লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়। তবে আজকে লাশের পরিচয় জানতে পেরেছি।

এ ব্যাপারে বিশ্বম্ভরপুর থানার ওসি সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত জানান, নিহতের স্বজনরা এসেছিল এবং আমাকে একটি ভিডিও দিয়েছেন। ভিডিও অনুযায়ী তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করছি। এ ছাড়াও যেহেতু লাশের ময়না তদন্ত হয়েছে, পিঠিয়ে হত্যার রিপোর্ট আসলে যথারীতি হত্যা মামলা রুজু করা হবে।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হায়াতুন নবী জানান, বিষয়টি শুনেছি,তদন্তপূর্বক যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন