1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. satvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১০:২০ পূর্বাহ্ন
  •                          

হাওরাঞ্চলের কথা ইপেপার

ব্রেকিং নিউজ
সিলেট নাসিং হোস্টেল যেন মিনি কারাগার! পাসপোর্ট অফিসে কোন ধরনের হয়রানী সহ্য করা হবে না— যুগ্ম সচিব নাসরিন জাহান সিলেট মহানগরীর উপশহরে হাতুড়ে ডাক্তারের বিরুদ্ধে প্রতারনার অভিযোগে মামলা রুজু জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কৃষি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে— কৃষি মন্ত্রী সিলেটের সাপ্তাহিক বাংলার বারুদ পত্রিকার সাবেক প্রধান সম্পাদক ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি জহিরিয়া হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক রুহুম আমিন ছিলেন জ্ঞানের সাগর— স্মরণ সভায় বক্তারা মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে নানান অনিয়মের দায়ে আইসক্রিম উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা তাহিরপুরে কুকুরের কামড়ে নারী-পুরুষ ও শিশুসহ অন্তত ১৬ জন আহত, দ্রত ব্যবস্থা নেয়ার দাবী প্রকৌশলী হতে চায় শাহরিয়ার তায়্যিব টানা ৩য় বারের মতো শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ নির্বাচিত হলেন ওসি হারুনূর রশিদ চৌধুরী

সুনামগঞ্জে কাইয়ুম বাহিনীর হামলায় গুরুতর আহত নজির মিয়া মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে সোমবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৯৩ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার:
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার কুরবাননগর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান ও গুদারগাও গ্রামের ইউপি সদস্য  কাইয়ুম বাহিনীর হাতে গুরুতর আহত নজির মিয়া সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। সুনামগঞ্জ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও আমলে নিচ্ছে না পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে ২৫ অক্টোবর বুধবার সকাল অনুমান ৮ ঘটিকায় খাইমতিয়র গ্রামের আমির উদ্দিনের জমির উত্তর পার্শ্বের বোরো জমিতে। গুরুতর আহত খাইমতিয়র গ্রামের মৃত হাছন আলীর পুত্র নজির মিয়া (৫৫) সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। অভিযোগ ও স্থানীয় সুত্র জানায়, কুরবান নগর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল কাইয়ুমের সাথে আহত নজির মিয়ার গোষ্টির দীর্ঘ দিন ধরে নানান বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। তারই জের ধরে গত ২৫ অক্টোবর সকালে নিজ বোরো জমিতে কাজ করার সময় নজির মিয়াকে একা পেয়ে কাইয়ুম মেম্বারের নির্দেশে তারই লোকজন দাড়ালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও আঘাত করে মাথার উপরে ও পিছনে একাধিক স্থানে গুরুতর জখম করে এবং লোহার রডের আঘাতে নজির মিয়ার মুখের উপরের পাটিতে পড়ে দুটি দাত ভেঙ্গে ব্যাপক রক্তক্ষরণ হয়। এ ছাড়াও আহত নজির মিয়ার শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি আঘাতের কারণে নীলাফুলা জখম করে। নজির মিয়ার শোর চিৎকারে আশপাশের লোকজন দৌড়াইয়া আসিয়া তাকে গুরুতর রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয়দের সহায়তায় সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে নজির মিয়া সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা: রফিকুল ইসলাম জানান, আহত নজির মিয়ার মাথায় গুরুতর জখমের চিহ্ন রয়েছে। তার মাথার উপরীভাগে ও মাথার পিছনে দাড়ালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। একাধিক সেলাই দেয়া হয়েছে। এ ছাড়াও তার মুখের উপরের পাটির দুটি দাত ভেঙ্গে গেছে। সেখানেও সেলাই দেয়া হয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা উন্নতির দিকে।

এ দিকে আহত নজির মিয়ার পুত্র মো: ফাহিম উদ্দিন বাদি হইয়া ইউপি সদস্য আব্দুল কাইয়ূমকে প্রধান আসামী করে তার ভাই আব্দুল হাই, কাইয়ুমের পুত্র তানভীর আহমদ, তাহমিদ আহমদ, মৃত আব্দুল জলিলের পুত্র মীর হোসেন, মছই মিয়ার পুত্র নবীল হোসেন, আব্দুল খালিকের পুত্র বসুর মিয়া, আব্দুল আওয়ালের পুত্র মখব্বীর, মৃত আমির আলীর পুত্র আলমগীর ও মৃত মনাফ মিয়ার পুত্র আজক আলীকে বিবাদী করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে সদর থানার এসআই রফিক তদন্ত করলেও কোন ধরনের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন আহতের পরিবার ও স্বজনরা।
এ ব্যাপারে সদর থানার এসআই রফিক জানান, গত ২৫ অক্টোবর স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল কাইয়ুমের গোস্টির সাথে নজির মিয়ার গোষ্টির মারা মারি হয়েছিল এবং নজির মিয়া আহত অবস্থায় সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বিষয়টি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার্কে অবহিত করা হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার্র নির্দেশনা অনুযায়ী পরবতীর্ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হইবে।

অভিযোগকারী ফাহিম উদ্দিন জানান, আমার পিতাকে একা পেয়ে কাইয়ুম মেম্বার ও তার লোকজন কুপিয়ে আমার পিতার মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম করিয়াছে। বর্তমানে আমার পিতা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আমি ন্যায় বিচার চেয়ে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও প্রভাবশালী ইউপি সদস্য আব্দুল কাইয়ুমের বিরুদ্ধে কোন ধরনের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি। আমি মাননীয় পুলিশ সুপার মহোদয়ের দৃষ্টি আর্কষন করছি এবং আমার পিতাকে কুপিয়ে গুরুতর জখমের ন্যায় বিচার প্রার্থণা করছি।

এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, বিষয়টি খোজ নিয়ে পরবতীর্ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হইবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন