1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:১৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সিলেটে বাংলাদেশ নারী মুক্তি সংসদের জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জের শামীমসহ ‘দুই জঙ্গি’ ছিনতাই : বিভিন্ন স্থানে পুলিশের ব্লক রেইড আর্তমানবতার সেবায় রেড ক্রিসেন্ট অসাধারণ ভূমিকা রাখছে-নাসির উদ্দিন খান লায়ন্স ক্লাব এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ উন্নয়নের ক্ষেত্রে ভাটি এলাকা আর পিছিয়ে থাকবে না-পরিকল্পনামন্ত্রী এম. এ. মান্নান সিলেট মোটরসাইকেল পার্টস মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভা খালেদার বাসায় প্রবেশের সড়কে পুলিশের চেকপোস্ট বিজয়ের মাসে বাংলাদেশ বৌদ্ধ যুব পরিষদ’র উদ্যোগে সিলেটে শীতবস্ত্র দান সিলেট শহরতলীর দক্ষিণ সুরমায় অবৈধ শিলংতীর জুয়া ও মাদকের জমজমাট আসর কোম্পানীগঞ্জে রাতের আধাঁরে দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ল অটোরিকশা

সিলেটে বিএনপির গণসমাবেশস্থলে উৎসবের আমেজ

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে শুক্রবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২২
  • ১৬ বার পড়া হয়েছে

হাওরাঞ্চলের কথা :: আগামীকাল শনিবার সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশকে সামনে রেখে সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠে এখন উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। সিলেটে দলটির গণসমাবেশ ঘিরে নেতাকর্মীরা মাঠে আসতে শুরু করেছেন। এসময় তারা ছোট-বড় মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে প্রবেশ করছেন।

শুক্রবার সকালে সমাবেশস্থল গিয়ে দেখা গেছে, এরই মধ্যে কয়েক হাজার নেতাকর্মী সমাবেশস্থল সিলেট সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠে অস্থায়ী প্যান্ডেলে অবস্থান করছেন। সমাবেশস্থলে নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে চলছে স্লোগান। বিভিন্ন ক্যাম্পে ও মাঠের ভেতর যেন উৎসবের আমেজ।

এদিকে সমাবেশস্থলের চারপাশে সিলেটের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও থানাভিত্তিক বড় বড় ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে। সেসব ক্যাম্পে এলাকার বিএনপির নেতাকর্মীরা আগে থেকেই অবস্থান নিয়েছেন।

বিএনপি নেতা ও হবিগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র জি কে গউছ, নবীগঞ্জের সাবেক সংসদ সদস্যসহ মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ ও সিলেটের বিভিন্ন উপজেলার কমপক্ষে ২০টি ক্যাম্প রয়েছে। আগাম গণসমাবেশে আসা এসব কর্মীরা গতকাল বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ক্যাম্পে অবস্থান করেন। আর সেখানেই তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।

এদিকে শুক্রবার সকালে সমাবেশস্থল পরিদর্শন করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

পরিদর্শনে গিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিএনপির গণসমাবেশ আগামীকাল শনিবার। তবে আগামীকাল নয়, আজ রাতের মধ্যেই সিলেট নগরীর জনসমুদ্রে পরিণত হয়ে যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বাধা-বিপত্তি মাথায় নিয়েই আমাদের সকল কাজ গত ১৩ বছর ধরে করছি। আপনারা দেখেন, আগামীকাল আমাদের সমাবেশ। গতকাল (বৃহস্পতিবার) থেকেই মানুষ চলে আসছেন। এটা জনগণের দাবিতে পরিণত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের সমস্ত প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। মাঠের সমস্ত কাজ সম্পন্ন। জুম্মার পরে থেকে এই সিলেট নগরী একটি জনসমুদ্রে পরিণত হবে। যেটা আপনারা আগামীকাল আশা করছেন, সেটা আজকে রাতের মধ্যেই দেখবেন যে সমস্ত শহর লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়বে।’

আরিফ আরও বলেন, ‘বাধা-বিপত্তি অতিক্রম করে জনতা আসছে। বাধা-বিপত্তি যে হচ্ছে না, সেটা কেউ বলতে পারবে না। প্রতিটা মুহূর্তে, প্রতিটা জায়গায় সুযোগ পেলেই চুলকানি দেওয়া হচ্ছে। তবে একটা কথা বিশ্বাস আমার, সিলেটে একটা রাজনৈতিক সম্প্রীতি আছে। আমরা প্রত্যেকে প্রত্যেকের গণতান্ত্রিক অধিকার দেওয়ার জন্য…এমন মানুষ সিলেটে আছে। কাজেই এখানে অতিউৎসাহী কোনো কর্মকর্তা বা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অতিউৎসাহী দু-চারজন ছাড়া…..আমরা সর্বাত্মক সহযোগিতা পেলেও বাইরের কিছু অতিউৎসাহী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা দুই-চারটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটাচ্ছেন বলে আমরা খবর পাচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি, খালেদা জিয়ার মুক্তি, তত্ত্বাবধায়ক সরকার, সংসদকে বিলুপ্ত, সরকারকে পদত্যাগসহ বিভিন্ন দাবিতে বিভাগীয় সমাবেশ করছে বিএনপি। ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, খুলনা, রংপুর, বরিশাল ও ফরিদপুরে গণসমাবেশ করেছে দলটি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন