1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০৫:০৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নাসিরসহ ছয়জনকে আসামী করে ধর্ষন চেষ্টা মামলা করেছে চিত্র নায়িকা পরিমণী দক্ষিণ সুনামগঞ্জে পঞ্চায়েতী কবরস্থান দখলমুক্ত করলেন উপজেলা প্রশাসন দোয়ারাবাজার থানার ওসি নাজির আলম বদলী আব্দুর রশিদ হত্যার ঘটনায় চেয়ারম্যানসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা যাদুকাটা নদীর ইজারাবন্দোবস্ত বৈধ ঘোষনা করায় লাখো শ্রমিকের মুখে আনন্দের হাসি রাতের আধারে চলছে পাড় কাটার মহোৎসব: থামছে না ধোপাজান চলতি নদীতে ড্রেজার মেশিনের তান্ডব! সুনামগঞ্জে চোর ভেবে পিঠিয়ে হত্যার পর বেওয়ারিশ হিসেবে দাফনের অভিযোগ দক্ষিন সুনামগঞ্জে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে যুবক খুন তাহিরপুরে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচীর বেকার যুবকদের দৈনিক যাতায়াত ভাতা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ ছাতকে চাচাত ভাইয়ের হামলায় গুরুতর আহত ব্যবসায়ী এনাম মারা গেছে, আটক ২

সাংবাদিক রোজিনাকে হত্যা চেষ্টা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে সুনামগঞ্জ সাংবাদিক ফোরামের নিন্দা ও প্রতিবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১
  • ৬৪ বার পড়া হয়েছে

পাঁচ ঘণ্টার বেশি সময় সচিবালয়ে আটকে রেখে প্রথম আলোর জেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা, হত্যা চেষ্টার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সুনামগঞ্জ সাংবাদিক ফোরাম নেতৃবৃন্দরা। সোমবার রাতে সংগঠনের সভাপতি কুলেন্দু শেখর দাস ও সাধারণ সম্পাদক মাহতাব উদ্দিন তালুকদার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের সঙ্গে যে অমানবিক আচরণ করা হয়েছে তা লজ্জাজনক ও স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থি। রোজিনা ইসলাম অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার জগতে খুবই আলোচিত নাম। আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতিও পেয়েছেন তিনি। এমন একজন সাংবাদিক পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গেলে তাঁকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে শারিরীক, মানসিক নির্যাতন ও মিথ্যা কাল্পনিক তথ্য উপস্থাপন করে অন্যায়ভাবে জেলে পাঠানো দেশের সাংবাদিক সমাজ মেনে নিতে পারছেনা। কী কারণে এভাবে আটকে রাখা হয়েছে, অসুস্থ হওয়ার পরও তাঁকে হাসপাতালে না নেয়ার বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া দরকার। রোজিনাকে হেনস্তা, শারিরীক নির্যাতনকারীদের খুজে বের করতে হবে এবং তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। প্রসঙ্গত, রোজিনা ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য সোমবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে যান। তাঁকে সেখানে একটি কক্ষে আটকে রাখা হয় এবং তাঁর মুঠোফোন কেড়ে নেওয়া হয়। একপর্যায়ে সেখানে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। সচিবালয়ে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নিয়ে যাওয়া হয় রোজিনা ইসলামকে মিথ্যা মামলায় জেলে পাঠানো হয়েছে। তাকে দ্রুত মুক্তির দাবী জানানো হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন