1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১০:২৬ অপরাহ্ন

মাদক সম্রাট মিল্টনের বড় ভাই নৌকার মাঝি,সেলবরষ ইউনিয়নে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে বৃহস্পতিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১৭৬ বার পড়া হয়েছে

জাকিয়া সুলতানাঃ
মাদক সম্রাট মিল্টনের  বড় ভাই নৌকার মাঝি হওয়ায় ক্ষোভে ফেটে পড়ছে সুনামগঞ্জের ধরমপাশার সেলবরষ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের দলীয় নেতাকর্মীরা। সর্বত্র বইছে সমালোচনার ঝড়।
সুত্র জানায়, সেলবরষ ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের ১১ মাদক মামলার আসামী মো.তৌহিদুজ্জামান তালুকদার মিল্টনের বড় ভাই সুলতান তালুকদার চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতিক নৌকা প্রতিক পেয়ে নির্বাচন করছেন।
নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর আপন ছোট ভাই মিল্টনের বিরুদ্ধে মোহনগঞ্জ, নেত্রকোনা, বারহাট্রা ও ধর্মপাশা থানায় অন্তত ১১টি মাদক মামলা রয়েছে। সূত্র আরও জানায়, অবৈধ নেশা জাতীয় মাদকদ্রব্য বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজ হেফাজতে রাখার অপরাধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ২০১৮ এর ৩৬ (১) এর ১০ (ক) ধারায় মো.তৌহিদুজ্জামান তালুকদার মিল্টন এর বিরুদ্ধে ১১ মাদক মামলা আদালতে বিচারাধীন আছে। মামলা গুলোর মধ্যে মোহনগঞ্জ থানার মামলা নং-১৩, তারিখ ১৬/৬/২০। ধর্মপাশা থানার মামলা নং-৯,তারিখ ২৬/৭/১৯। ধর্মপাশা থানার মামলা নং-১০,তারিখ ২৬/৭/১৯। ধর্মপাশা থানার মামলা নং-৫,তারিখ ২৯/৮/১৫ইং। ধর্মপাশা থানার মামলা নং-৯,তারিখ ১৬/০১/১৪ইং। নেত্রকোনা সদর থানার মামলা নং-০৪,তারিখ ০২/১০/২০ইং। বারহাট্রা থানার মামলা নং-১২,তারিখ ১০/০৭/২০ইং। নেত্রকোনা সদর থানার মামলা নং-০৫,তারিখ ০৫/০৫/১৮ইং। বারহাট্রা থানার মামলা নং-০২, তারিখ ০৩/১২/১৭ইং। বারহাট্রা থানার মামলা নং-১১, ১৩/০৩/১৭ইং। মোহনগঞ্জ থানার মামলা নং-১৫, তারিখ ৫/১৫ইং। ঘনিষ্ঠ সূত্রে আরো জানা যায়, গত ১৬ নভেম্বর-২১ইং সোমবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেলবরষ ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের প্রতিবন্ধী আবু মিয়ার বাড়ি থেকে মো.তৌহিদুজ্জামান তালুকদার মিল্টন ও তার সহযোগী মাসুম মিয়া (২৫) কে গ্রেফতার করেছিল ধর্মপাশা থানা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৪৬৯ পিস ইয়াবা ৪ টি মোবাইল ফোন ও ইয়াবা সেবনের ২ টি ফুয়েল পেপার রোল জব্দ করা হয়েছিল। নৌকার প্রার্থী মো.সুলতান তালুকদার ক্ষমতার দাপটে পর্দার আড়ালে থেকে তার ভাই কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ি মো.তৌহিদুজ্জামান তালুকদার মিল্টনকে ব্যবসা পরিচালনায় সহযোগিতা করে আসার অভিযোগ রয়েছে। মিল্টন তালুকদারের বেশ কয়েকটি সিএনজি ও অটো-রিকসা দিয়ে মোহনগঞ্জ, নেত্রকোনা, বারহাট্রা ও ধর্মপাশা থানার বিভিন্ন স্থানে মাদক পরিবহন করে থাকেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সেলবরষ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের এক কর্মী জানান, মাদক সম্রাট মিল্টন তালুকদারের ভাই সুলতান তালুকদার যদি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারেন তাহলে সারাদেশের ন্যায় সেলবরষ ইউনিয়নে মাদক ব্যবসায়ীদের স্বর্গরাজ্যে পরিনত হবে। এলাকাবাসী আরও জানান, স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উধ্বতন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি গোপনে সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক অভিযোগের সত্যতা প্রমানিত হলে মিল্টন ও তার ক্যাডারদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জোর দাবী জানিয়েছেন। মাদক ব্যবসায়ি মিল্টন তালুকদার জানান, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সঠিক নয়,উদ্যেশ্যমূলক। ধর্মপাশা থানার ওসি মো খালেদ চৌধুরী জানান, কুখ্যাত মিল্টনের বিরুদ্ধে ১১ টি মাদক মামলা রয়েছে। আদালতে বিচারাধীন, এখনো চার্জসিট দেয়া হয়নি, এবং থানায় ২ টি জি আর ওয়ারেন্ট রয়েছে। তদন্ত চলছে,আমরা মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার। মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সুনামগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সাজেদুল হাসান জানান,আমরা এ বিষয়ে অবগত নই। সঠিক তথ্য পেলে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন