1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৫০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
তাহিরপুরে সমালয় চাষাবাদ কর্মসূচির উদ্বোধন দোয়ারাবাজারে উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী তানভীরের গণসংযোগ মৌলভীবাজারে বাড়িতে ঢুকে নারীসহ ২জনকে কুপিয়ে গুরুতর জখমের ঘটনায় আদালতে মামলা দায়ের দুই মামলার ফেরারী হয়ে জীবন বাচাতে পালিয়ে বেড়াচ্ছে সুনামগঞ্জের বিএনপি নেতা মোঃ অলি নবী তাহিরপুরে প্রথম বার সমলয় পদ্ধতিতে চাষাবাদ কওমি শিক্ষকদের মাঝে বিনামুল্যে শীতবস্ত্র বিতরন করেছে তাহিরপুর প্রশাসস তাহিরপুর উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে করোনা ও নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন নিয়ে সর্তকতামুলক সভা  জাউয়াবাজার ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী আল আমিন হত্যা মামলায় তিন সহপাঠিকে যাবৎজীবন দন্ডাদেশ দিয়েছে জেলা ও দায়রা জজ সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় নৌকাকে ফেল করানোর অভিযোগ তুলেএমপি রতনকে দল থেকে বহিস্কারের দাবী জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন এমপি রতনের নিজ কেন্দ্রে নৌকার পরাজয় নিয়ে উত্তাল হয়ে উঠছে সুনামগঞ্জের ধর্মপাশার রাজনীতি

জাউয়াবাজার ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী আল আমিন হত্যা মামলায় তিন সহপাঠিকে যাবৎজীবন দন্ডাদেশ দিয়েছে জেলা ও দায়রা জজ

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে সোমবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১৩২ বার পড়া হয়েছে
বিশেষ প্রতিনিধিঃ
সুনামগঞ্জের ছাতকের  জাউয়াবাজার ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী আল আমিন হত্যা মামলায় তিনসহপাঠীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন সুনামগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ ওয়াহিদুজ্জামান শিকদার এর আদালত।
সোমবার সকালে রায় ঘোষনা করা হয়।
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন আল আমিনের সহপাঠী একই উপজেলার ছনুয়া গ্রামের আক্কাস মিয়া, মৌজরাই গ্রামের আজিজুল ইসলাম ও লক্ষ্মণসোম গ্রামের সাইদুল হক। আক্কাস মিয়া ও আজিজুল ইসলাম পলাতক রয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) খায়রুল কবির রুমেন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।  মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৭ অক্টোবর দোয়ারাবাজার উপজেলার পলিরচর গ্রামের বাসিন্দা আল আমিনকে হত্যা করা হয়। নিহত আল আমিন জাউয়াবাজার ডিগ্রি কলেজে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলেন। যাতায়াতের অসুবিধার কারণে ছাতক উপজেলার জাউয়াবাজার ইউনিয়নের দেবেরগাঁও গ্রামের সফিক উদ্দিনের বাড়িতে থেকে তিনি পড়াশোনা করতেন। ঘটনার দিন দুপুরে কলেজ প্রাঙ্গণে আল আমিনের সঙ্গে তাঁর সহপাঠী আক্কাস মিয়া, আজিজুল ইসলাম ও সাইদুল হকের কথা কাটাকাটি নিয়ে ঝগড়া হয়। কলেজের অধ্যক্ষ বিষয়টি পরদিন মীমাংসা করে দেবেন বলে জানিয়েছিল। পরে আল আমিন নিজ বাড়ি দোয়ারাবাজার উপজেলায় যাওয়ার জন্য সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের বড়কাঁপন এলাকায় গিয়ে টেম্পোর  অপেক্ষা করছিলেন। তখন আক্কাস মিয়া, আজিজুল ইসলাম ও সাইদুল হক সেখানে গিয়ে আল আমিনের ওপর হামলা চালিয়ে তাঁকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে গুরুতর আহত করে। গুরুতর আহত আল আমিনকে  হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আল আমিনের বাবা আনফর আলী ওরফে কাছা মিয়া বাদী হয়ে ওই দিনই আক্কাস মিয়া, আজিজুল ইসলাম ও সাইদুল হককে আসামি করে ছাতক থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। পুলিশ ২০১৭ সালে ৩০ জুন আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। মামলায় আদালতে ২৩ জন সাক্ষ্য দেন।
সোমবার সকালে রায় ঘোষণার সময় আদালতে আসামি সাইদুল হক উপস্থিত ছিলেন। পরে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন