1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০৭:০৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
বন্যার্থদের পাশে সিলেট বিল্ডাস ও শামীমাবাদ যুব সমাজ দি ডেইলী বাংলাদেশ টুডে পরিবারের অর্থায়নে ছাতকে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ফতেপুরে বন্যার্তদের মাঝে বিশ্বাস বিল্ডার্স লিমিটেডের খাবার ও কাপড় বিতরণ বন্যায় কবলিত মানুষের পাশে কর্ম সেবা সংস্থা কোস্ট গার্ডের সহায়তায় নতুন জীবন পেল আলীপুরের গৃহবধু হোসনে আরা সুনামগঞ্জে বন্যার্তদের মাঝে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড এর ত্রাণ বিতরণ সুনামগঞ্জে ত্রাণ বিতরণ করছেন ঢাকা দক্ষিনের আ’লীগ নেতা শেখ মো: আজাহার বন্যায় মোকাবেলায় জনপ্রতিনিধি গ্রামবাসী, প্রশাসন ও পুলিশ একসাথে কাজ করতে হবে- বেনজির আহমদ ভয়াবহ বন্যায় র‌্যাব মানুষের পাশে ছিল পাশে থাকবে- ডিজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বন্যার্ত মানুষের জন্য যা করনীয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী তাই করছে- লে.জে.সফিউদ্দিন আহমদ

জগন্নাথপুরে সড়ক সংস্কার কাজ শেষ না হতেই শুরু ভাঙ্গন!

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১
  • ১২৫ বার পড়া হয়েছে

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি:

জগন্নাথপুর-বিশ্বনাথ-রশিদপুর দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে প্রায় ২৫ কোটি টাকা বাজেটে সড়কে সংস্কার কাজ শেষ হতে না হতেই দেখা দিয়েছে ভাঙন। সড়কের ভাঙন দৃশ্যের একটি ভিডিও ফুটেজ গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে হলে এলাকাবাসীর মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

দেখা দেয় সমালোচনা। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর জগন্নাথপুর উপজেলা কার্যালয় সূত্র জানায়, বিভাগীয় শহর সিলেট ও রাজধানী ঢাকাতে যাতায়াত করতে জগন্নাথপুর ও বিশ্বনাথ উপজেলাবাসীর একমাত্র সড়ক এটি। সড়কের জগন্নাথপুর উপজেলা অংশে ১৩ কিলোমিটার ও বিশ্বনাথ উপজেলা অংশের ১৩ কিলোমিটার যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় দুই উপজেলার লোকজন সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন। সড়ক সংস্কারের দাবিতে গত বছর একাধিকবার পরিবহন ধর্মঘট পালিত হয়। কিন্তু কিছুতেই কাজ হচ্ছিলো না।

এমন অবস্থায় ২০১৯ সালে সড়কের বেহাল দশা দেখা দিলে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে সড়কে ১৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়ে অস্থায়ী মেরামতের কাজ করা হয়। এর কিছুদিন পরই সড়কের জগন্নাথপুর উপজেলা অংশের ১৩ কিলোমিটার জায়গা সংস্কারের জন্য ২৫ কোটি টাকা বাজেট উল্লেখ করে দরপত্র আহ্বান করা হলে মাদারীপুরেরর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান আমির সালেহ (জেভি) অংশ নেয়। এসময় দ্রুত সড়কের কাজ বাস্তবায়ন করতে ১০ শতাংশ অতিরিক্ত দরে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়। সে অনুযায়ী ২০২০ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে সড়কে কাজ শুরু করে চলতি বছরের ৩১ মার্চ কাজ শেষ করার কথা।

অপর দিকে বিশ্বনাথ অংশের ১৩.৯ কিলোমিটার অংশে সাড়ে ২৩ কোটি টাকা বরাদ্দে কাজ পায় শাওন এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে কাজ শুরু করলেও কাজের অগ্রগতি সন্তোষজনক নয়। ফলে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন দুই উপজেলার মানুষ। এমন অবস্থায় কাজ শেষ হবার আগেই জগন্নাথপুর অংশের ভবের বাজার এলাকার ‘মুছিবাড়ি মোড়ে’ ভাঙন দেখা দিয়েছে। তবে ঠিকাদার আমির সালে বলেছেন, কাজ চলমান আছে। আমরা এখনো বিল তুলিনি। বৃষ্টির কারণে মাটি ধসে  পড়েছে।

আমরা পুনরায় কাজ করছি। এদিকে সম্প্রতি জগন্নাথপুর উপজেলা অংশের কাজ শেষ করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান সড়কের কাজ উদ্বোধন করার কথা। উদ্বোধন করার আগেই ভাঙ্গন দেখা দেওয়ায় এলাকাবাসীর অভিযোগ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও এলজিইডির প্রকৌশলী ভাগ বাটোয়ারা মাধ্যমে নিম্নমানের কাজ করায় সড়কে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক দেখতে উপজেলাবাসী জোর দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট। তবে ঠিকাদারের সাথে সুর মিলালেন জগন্নাথপুর উপজেলা এলজিইডি প্রকশৌলী গোলাম সারোয়ার। তিনি বলেন, বৃষ্টির কারণে মাটি নরম হয়ে কিছু সংখ্যক রাস্তা ধসে পড়েছে। কাজ চলমান আছে, পুনরায় কাজ চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন