1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. satvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৫৮ পূর্বাহ্ন
  •                          

হাওরাঞ্চলের কথা ইপেপার

ব্রেকিং নিউজ
বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে জেলা পুলিশের পান্তা উৎসব পালিত সুনামগঞ্জে একুশে টেলিভিশনের ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চুরি হয়ে যাওয়া পাসপোর্ট ও মোবাইল উদ্ধার করে দিলেন এপিবিএন টিম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে মিথ্যা অপপ্রচার দোয়ারাবাজারে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের মানহানির অভিযোগে মামলা দায়ের গোলাপগঞ্জের বিশিষ্ট সমাজসেবক ফরিজ আলীকে জড়িয়ে প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের নিন্দা ও প্রতিবাদ সুনামগঞ্জে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মধ্যে কোরআন শরিফ বিতরণ বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি নির্বাচনে সিলেটের বিজয়ী হয়েছেন দুইজন  দিরাইয়ে দোকান থেকে ৬০ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার সিলেট মহানগরীর আলমপুর থেকে ১০ জুয়াড়ীকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে এসএমপি ডিবি পুলিশ সাংবাদিক পারভেজের মায়ের সু—চিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে —এমপি নাদেল

চলতি মাসের শেষের দিকে অতিবৃষ্টি ও আগাম বন্যার আশংঙ্খা রয়েছে – পানি উন্নয়ন বোর্ড

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে শুক্রবার, ২৯ মার্চ, ২০২৪
  • ২৩ বার পড়া হয়েছে

হাওরাঞ্চল ডেস্ক:

চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে অতিবৃষ্টি ও আগাম বন্যা শঙ্কার কথা জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। ভারতের মেঘালয়ে অতিবৃষ্টি হলে তলিয়ে যেতে পারে হাওরের বোরো ফসলের খেত। টেকসই বাঁধ না থাকায় ফসলের ক্ষতির শঙ্কায় রয়েছেন কৃষকরা। তবে ফসলরক্ষায় বাঁধে জরুরি মেরামতের জন্য প্রস্তুত পানি উন্নয়ন বোর্ড।

২০১৭ সালের মার্চের ২৮ তারিখ ভারতের মেঘালয়ে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের কারণে সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলের ফসলরক্ষা বাঁধ পুরোপুরি ভেঙে তলিয়ে যায় ফসল। এ ছাড়া ২০২২ সালে আগাম বন্যায় ফসলের আংশিক ক্ষতি হয়।

চলতি মাসের শেষের দিকে অধিক বৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। এতে বন্যায় বাঁধ ভেঙে ফসল তলিয়ে যাওয়ার আতঙ্কে রয়েছেন কৃষকেরা। তারা বলছেন, অতিবৃষ্টি হলে বন্যার শঙ্কা তো রয়েছে। বন্যা হলে তলিয়ে যায় ফসলের মাঠ।

৭৩৪টির মধ্যে অধিকাংশ বাঁধই টেকসই হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন কৃষকেরা। তাঁরা বলছেন, বাঁধ টেকসই হয় না। তবে টেকসই বাঁধ নির্মাণ হলে সঠিকসময়ে ফসল তোলা যায়, নিরাপদে বাস করা যায়।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মামুন হাওলাদার জানান, মাসের শেষের দিকে ভারী বৃষ্টি হলেও পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে ভারতের মেঘালয়ে বৃষ্টি কম হলে বন্যার শঙ্কা নেই। তবে সার্বিক বিবেচনায় বাঁধগুলো জরুরি মেরামতের প্রস্তুতি আছে।

এ প্রসঙ্গে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাশেদ ইকবাল চৌধুরী বলেন, ‘বন্যার আগাম প্রস্তুতি হিসেবে আমরা পানি প্রবেশের জায়গাগুলোতে কিছু বাড়তি বস্তা ও বাঁশ দিয়ে রেখেছি। জরুরি সময়ে যেন এগুলো ফসল রক্ষায় কাজে আসে তাই এ ব্যবস্থা।

জেলায় চলতি বছর ২ লাখ ২৩ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন