1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১০:১৯ অপরাহ্ন

কাঠইর ইউনিয়নের একই কেন্দ্রে দু’ধরনের ফলাফল!

স্টাফ রিপোর্টার:
  • আপডেট করা হয়েছে বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৯৩৪ বার পড়া হয়েছে

মেম্বারী কাস্টিং ভোট ১৪৫৭ চেয়ারম্যানী কাস্টিং ভোট ১৩৩৩!

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার কাঠইর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোট গণনায় অনিয়মের অভিযোগ উত্থাপন করে পূণ;ভোট গণনার দাবী জানিয়েছেন লাঙ্গল প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারুক মিয়া। জানা যায়, গত ২৮ নভেম্বর রবিবার তৃতীয় ধাপে সদর উপজেলার কাঠইর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। শান্তিপূর্নভাবে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হলেও ভোট গণনায় অনিয়মের অভিযোগ উত্থাপন করে রিটারিং অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারুক মিয়া। অভিযোগ ও স্থানীয় সুত্র জানায়, কাঠইর ইউনিয়নের শাখাইতি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উলুতুলু সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনায় ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন। কেন্দ্র ভিত্তিক ভোট কেন্দ্রের ফলাফল সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার কর্তৃক স্বাক্ষরিত সিট দেয়ার বিধান থাকলেও কোন প্রার্থীর এজেন্টকে না দিয়ে সুকৌশলে ফলাফল সীট কেন্দ্রের নোটিশ বোর্ডে টানিয়ে দেন। উক্ত নোটিশ বোর্ডের ফলাফল সীট সাথে সাথে ছিড়ে ফেলে দেয়া প্রতিপক্ষের লোকজন। এ দিকে রিটানিং অফিসার কর্তৃক কেন্দ্র ভিত্তিক ফলাফল দৃষ্টে দেখা যায়, শাখাইতি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ১৮১২ ভোটের মধ্যে মেম্বারী রেজাল্টসীটে মোট কাটিং ভোট ১৪৫৭ ভোট কিন্তু চেয়ারম্যান প্রার্থীদের রেজাল্টসীটে মোট ১৮১২ ভোটের মধ্যে ১৩৩৩ ভোট কাষ্টিং দেখানো হয়েছে। এই কেন্দ্রে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের ফলাফল ও মেম্বার প্রার্থীদের ফলাফলে ১২৪ ভোটের ব্যবধান রয়েছে। যা নির্বাচনী বিধি বিধানা অনুযায়ী অনিয়মের প্রমান পাওয়া যায়। লাঙ্গল প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারুক মিয়া অভিযোগ করে জানান, শাখাইতি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রটি সাবেক চেয়ারম্যান মুফতি শামসুল ইসলামের বাড়ীর কেন্দ্র। এই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং ও পোলিং অফিসারদের ম্যানেজ করে আমার ১২৪ ভোট অন্যত্র সরিয়ে ফেলেছেন। গরমিলের কারণে আমাকে উদ্দেশ্যমুলকভাবে ফেল দেখানো হয়েছে। ইউনিয়নের ৯টি কেন্দ্রে আমাকে লাঙ্গল প্রতিকে ১৭৩৯ ভোট ও খেজুর গাছ প্রতিকে ১৭৯২ দেখিয়ে আমাকে উদ্দেশ্যমুলকভাবে ৫৩ ভোট কম দেখিয়ে পরাজিত করা হয়েছে। খেজুর গাছ প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সাথে উপজেলা প্রশাসনের কিছু অসৎকর্মকর্তার সাথে সুসর্ম্পক থাকার কারণেই এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে। আমি বিষয়টির সুষ্টু তদন্ত সহ ভোট পূণ গণনার জন্য রিটানিং অফিসার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। এ ছাড়াও উলুতুল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আমার ভোট কম দেখিয়ে খেজুর গাছের ভোট বেশী দেখানো হয়েছে। যা আমার মনোনিত এজেন্টের সাথে নির্বাচনী কর্মকর্তা ও আইনশৃংখলার কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তাদের সাথে তর্কাতর্কী হয়েছে। পরবর্তীতে নির্বাচনে কারচুপির বিষয়টি ধাপাচাপা দিতে আমার মনোনিত এজেন্টকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর ভয় দেখিয়ে নির্বাচনী কর্মকর্তারা কেন্দ্র ত্যাগ করেন। টেবিল ফ্যান প্রতিকের কেন্দ্র এজেন্ট রাজু মিয়া জানান, উলুতুলু ভোট কেন্দ্রে ভোট গণনায় অনিয়মের বিষয়ে লাঙ্গল প্রতিকের এজেন্ট আবুল কালামের মধ্যে সাথে প্রিসাইডিং অফিসারের তর্কাতর্কি হয়েছে এবং ভোট গণনায় কারচুপি করা হয়েছে জানিয়ে লাঙ্গলের এজেন্ট আবুল কালাম অভিযোগ করেছিলেন। রাজু আরও জানান, ঐ সময় কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিসাইডিং কর্মকর্তাকে পূনরায় ভোট গণনার অনুরোধ করলে প্রিসাইডিং অফিসার পুলিশি সহযোগিতায় ভোট কেন্দ্র ত্যাগ করেন। শাখাইতি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিসাইডিং অফিসার ও সুনামগঞ্জ পিটিআই এর ইন্সট্রাকটর মো: রাজিবুল আলম ভুইয়া জানান, কেন্দ্রের কাস্টিং ভোটে কোন ধরনের অনিয়মের সুযোগ ছিলোনা এবং কোন অনিয়ম হয়নি। মেম্বারী ভোট ও চেয়ারম্যানদের কাস্টিং ভোট সমান হওয়ার কথা ব্যবধান হওয়ার সুযোগ নাই। এ মুহুর্তে ডকুমেন্ট না দেখে গরমিলের বিষয়টি বলতে পারব না। রিটানিং অফিসারের কাছে যা জমা দিয়েছি তা দেখে ও নির্বাচন কমিশনারের সাথে কথা বলতে হবে। খেজুর গাছ প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী কর্তৃক ম্যানেজ হয়ে ১২৪ ভোট অন্যত্র সরিয়ে ফেলার বিষয়ে অস্বীকার করেন। অভিযোগটি যাচাই করে আপনাকে বলতে পারব।
কাঠইর ও মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের রিটানিং কর্মকর্তা সৈয়দ আহমদ শাহজালাল জানান, একই কেন্দ্রে চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের কাষ্টিং ভোট সমানই হবে। মেম্বার ও চেয়ারম্যানদের ভোটে ১২৪ ভোট ব্যবধান হতে পারে না। বিষয়টি প্রিসাইডিং অফিসারকে জিজ্ঞাসা করে আপনাকে জানাতে পারব।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুরাদ উদ্দিন হাওলাদার জানান, কোন কেন্দ্রে মেম্বার ও চেয়ারম্যান প্রার্থীদের কাস্টিং ভোটে ব্যবধান হওয়ার কথা না। কোন কেন্দ্রে এ ধরনের সমস্যা দেখা দিলে সংশ্লিষ্ট সংক্ষুদ্ধ প্রার্থী নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ দাখিল করতে পারেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন