1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. satvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২:২১ পূর্বাহ্ন
  •                          

হাওরাঞ্চলের কথা ইপেপার

ব্রেকিং নিউজ
বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে জেলা পুলিশের পান্তা উৎসব পালিত সুনামগঞ্জে একুশে টেলিভিশনের ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চুরি হয়ে যাওয়া পাসপোর্ট ও মোবাইল উদ্ধার করে দিলেন এপিবিএন টিম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে মিথ্যা অপপ্রচার দোয়ারাবাজারে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের মানহানির অভিযোগে মামলা দায়ের গোলাপগঞ্জের বিশিষ্ট সমাজসেবক ফরিজ আলীকে জড়িয়ে প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের নিন্দা ও প্রতিবাদ সুনামগঞ্জে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মধ্যে কোরআন শরিফ বিতরণ বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি নির্বাচনে সিলেটের বিজয়ী হয়েছেন দুইজন  দিরাইয়ে দোকান থেকে ৬০ বস্তা সরকারি চাল উদ্ধার সিলেট মহানগরীর আলমপুর থেকে ১০ জুয়াড়ীকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে এসএমপি ডিবি পুলিশ সাংবাদিক পারভেজের মায়ের সু—চিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে —এমপি নাদেল

একুশের চেতনা হোক অবিনাশী

কোহেলী কুদ্দুস মুক্তি
  • আপডেট করা হয়েছে বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ২২ বার পড়া হয়েছে

অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণে একুশের চেতনা সদা জাগ্রত । বাংলাদেশের সকল আন্দোলন-সংগ্রামে এক অনন্য ঐক্যের প্রতীক । এক সময় একুশ ছিল পাকিস্তানি ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার যুদ্ধ। কিন্তু একুশ আজ আর কেবল বাংলাদেশ নয় একুশ আজ হয়ে উঠেছে বিশ্বের তাবৎ অঞ্চলের মাতৃভাষার অস্তিত্ব ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠা আন্দোলনের অম্লান প্রতীক। এভাবে একুশ আমাদের বোধ ও চেতনাকে উজ্জীবিত করে চলেছে নিরবধি, নিরন্তর। তাই একুশের প্রেরণার আলোক সঞ্চারে প্রজন্মের পর প্রজন্ম আলোকিত। সদা জাগ্রত বলেই দিন দিন একুশ তার অর্থ ও তাৎপর্য বদলিয়ে প্রতি মুহুর্তে আমাদেরকে আবেগে, বিশ্বাসে উদ্বেলিত রাখছে, রাখছে সমকাল ও প্রগতিশীলতাকে আশ্রয় করে সম্মুখের দিকে এগিয়ে চলার চাঞ্চল্যে মুখর।

 

 

১. একুশ আমাদের জাতি সত্তার প্রথম স্মারক। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের মাধ্যমে তিনি কারাগারে বসে ৫২’র অমর একুশের সময় ভাষা আন্দোলনকে তরান্বিত করেছিলেন এবং জেলখানায় থেকেও তিনি নানা দিক নির্দেশনা দিয়েছিলেন। বাঙালি বায়ান্ন সালে বুকের তাজা রক্ত দিয়ে শত্রুর হাত থেকে ছিনিয়ে এনেছিল আমাদের মুখের ভাষা – মায়ের ভাষা । রফিক, সালাম, বরকত, শফিউরসহ নাম না জানা অসংখ্য দামাল ছেলেদের বুকের রক্তে সেদিন রাজপথ রঞ্জিত হয়েছিল। শহীদের রক্তস্নাত এই অর্জন বিশ্বে বাঙালিকে অমর করে রেখেছে। যতদিন লাল সবুজের পতাকা খচিত এই বাংলাদেশ থাকবে, বাঙালি থাকবে, বঙ্গবন্ধু থাকবেন, ততদিন পৃথিবীর বুকে বাংলা ভাষা অমর হয়ে থাকবে।

 

 

আমরা নতুন প্রজন্মের মানুষ হিসেবে ৫২-র একুশ দেখিনি, তবে আমরা দেখেছি, ২০০৪ সালের একুশে আগস্টের মতো ন্যক্কারজনক ষড়যন্ত্রমূলক গ্রেনেড হামলা । ৫২-র একুশ আমাদের বাঙালি জাতিসত্তার প্রথম স্মারক হিসেবে অভিহিত হলেও ২০০৪ সালের একুশ হচ্ছে ষড়যন্ত্রের একুশ। এই ধারা আজও বাংলাদেশকে ঘিরে রেখেছে। আমরা নতুন প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে বলতে পারি, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু ও মেট্রোরেলের মতো মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করে এদেশের সক্ষমতার কথা জানিয়ে দিয়েছে পুরো বিশ্বকে। যে মার্কিনীরা এক সময় আমাদের তলাবিহীন ঝুড়ি বলত, তারাই এখন আমাদের উন্নয়ন দেখে হতবাক হচ্ছে। সবচে বড় প্রাপ্তি হচ্ছে, একমাত্র শেখ হাসিনার কারণেই বাংলাদেশকে নতুন বাংলাদেশ হিসেবে চিনতে পেরেছে বিশ্ব। আগামী দিনে বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে গড়ে উঠবে স্মার্ট বাংলাদেশ।

 

 

২. একুশের প্রেরণায় সকল ভাষাভাষি জনগোষ্ঠীর সম্মিলিত স্রোতধারায় গড়ে ওঠা এক সমৃদ্ধ বাংলাদেশই আমাদের সকল কর্মোদ্যোগের লক্ষবিন্দুতে পরিণত হোক। এই হোক একুশে ফেব্রুয়ারির অন্তহীন আবহ সঙ্গীত যা আমাদের সারা বছরের কর্মোদ্যোগকে প্রাণিত করে চলবে।

 

 

বিশ্বের বিলুপ্ত হতে যাওয়া ভাষাসমূহের পক্ষে একুশের অবস্থান আজ তাই আরো সুদৃঢ় ও সুসংহত। একুশের অন্তহীন প্রেরণা বক্ষে ধারণ করে বিশ্বের নানা প্রান্তের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর বিলুপ্ত-প্রায় ও মুমুর্ষু ভাষাসমূহ প্রাণ ফিরে পাবে । বিশ্বব্যাপী ছোট-বড় সকল জনগোষ্ঠীর সকল মাতৃভাষা একুশের প্রেরণায় আদরণীয় হয়ে উঠুক। একুশের এই চেতনা বিশ্বের ছোট-বড় সকল জনগোষ্ঠীর সকল মানুষকে আপ্লুত ও আচ্ছন্ন করুক এই আমাদের প্রত্যাশা। সকল জাতিগোষ্ঠীর সকল স্তরের মানুষের মধ্যে মাস হিসেবে ফেব্রুয়ারি শেষ হয় হোক, একুশের চেতনা হোক অবিনাশী।

 

 

বাঙালির ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতির ধারক বাহক হয়ে অমর একুশ যে মুক্তির দিশা দিয়েছে, সেই পথ ধরে সমাজ রাষ্ট্রের সব অনিয়ম, অনাচার, শোষণ, দুর্নীতির অবসান ঘটুক, গড়ে উঠুক বাঙালি জাতির একক জাতিসত্তা, মহান একুশে সেটাই প্রত্যাশা।

 

 

লেখক: সদস্য, নাটোর জেলা আওয়ামীলীগ।
সাবেক সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ যুব মহিলালীগ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন