1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. stvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সিলেটে বাংলাদেশ নারী মুক্তি সংসদের জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জের শামীমসহ ‘দুই জঙ্গি’ ছিনতাই : বিভিন্ন স্থানে পুলিশের ব্লক রেইড আর্তমানবতার সেবায় রেড ক্রিসেন্ট অসাধারণ ভূমিকা রাখছে-নাসির উদ্দিন খান লায়ন্স ক্লাব এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ উন্নয়নের ক্ষেত্রে ভাটি এলাকা আর পিছিয়ে থাকবে না-পরিকল্পনামন্ত্রী এম. এ. মান্নান সিলেট মোটরসাইকেল পার্টস মার্চেন্ট এসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভা খালেদার বাসায় প্রবেশের সড়কে পুলিশের চেকপোস্ট বিজয়ের মাসে বাংলাদেশ বৌদ্ধ যুব পরিষদ’র উদ্যোগে সিলেটে শীতবস্ত্র দান সিলেট শহরতলীর দক্ষিণ সুরমায় অবৈধ শিলংতীর জুয়া ও মাদকের জমজমাট আসর কোম্পানীগঞ্জে রাতের আধাঁরে দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ল অটোরিকশা

আ ফ ম কামাল খুনের ঘটনায় ৩ আসামিকে ৫ দিনের রিমান্ড

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে সোমবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২২
  • ১৫ বার পড়া হয়েছে

হাওরাঞ্চলের কথা :: সিলেট জেলা বিএনপি নেতা আ ফ ম কামাল খুনের ঘটনার মামলায় গ্রেফতারকৃত ৩ আসামিকে ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

সোমবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে তাদের আদালতে প্রেরণ করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) এয়ারপোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান মুহাম্মদ মাইনুল জাকির। তিনি বলেন- রবিবার (১৩ নভেম্বর) আবেদন শুনানির কথা থাকলে অনিবার্য কারণবশত আজ (সোমবার) সে শুনানি হয়।

রিমান্ডে নেওয়া আসামিরা হচ্ছেন- সিলেটের এয়ারপোর্ট থানাধীন বাদামবাগিচা আবাসিক এলাকার মাসুকের ছেলে মিশু (২৬), বড়বাজার গোয়াইপাড়ার মৃত নুর মিয়ার ছেলে মনা (২৫) ও একই এলাকার মৃত নুর মিয়ার ছেলে কুটি মিয়া (২৪)। এদের মধ্যে মিশু মামলার এজাহারনামীয় ৪, মনা ৬ ও কুটি ৫ নং আসামি।

গত ৬ নভেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আ ফ ম কামাল সিলেট বিমানবন্দর এলাকা থেকে আম্বরখানা বড়বাজার হয়ে গোয়াইটুলার দিকে যাচ্ছিলেন। এসময় তার গাড়িকে অনুসরণ করে দুটি মোটরসাইকেল। তাতে আরোহী ছিলেন তিনজন। পরে আরেকটি মোটরসাইকেলে থাকা দুই ব্যক্তি বড়বাজার ১১৮নং বাসার সামনে কামালের গাড়ির গতিরোধ করে। পরে তাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে খুনিরা পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা কামালকে উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার রাতে নিহতের বড় ভাই ময়নুল হক বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ছাত্রলীগ কর্মী আজিজুর রহমান সম্রাটকে প্রধানকে ১০ জনের নামোল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া অজ্ঞাত আসামি আছেন আরও পাঁচ-ছয়জন।

ঘটনার সিলেটজুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। খুনীদের ধরতে চিরুনি অভিযান শুরু করে র‍্যাব-পুলিশ। পরবর্তীতে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে কুটি মিয়াকে এয়ারপোর্ট থানাপুলিশ এবং সুনামগঞ্জ জেলার শান্তিগঞ্জ থানার নোয়াখালি বাজার এলাকার নুরপুর থেকে মিশু ও মনাকে র‍্যাব গ্রেফতার করে। তবে মূল অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা এখনও অধরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন