1. mdjoy.jnu@gmail.com : admin : Shah Zoy
  2. satvsunamgonj@gmail.com : Admin. :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৮:৫৯ অপরাহ্ন
  •                          

হাওরাঞ্চলের কথা ইপেপার

ব্রেকিং নিউজ
বিশ্ব মোড়লদের চক্ষুরাঙানো অপেক্ষা করে বাংলার মানুষকে জাতীয় নির্বাচন উপহার দিয়েছেন শেখ হাসিনা- মন্ত্রী আব্দুর রহমান অনিবন্ধিত পোটার্ল ‘‘বিশ্বম্ভরপুর ২৪.কম’ এ প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ আন্তর্জাতিক সম্মাননা পেলেন জ্যোতিষ শাস্ত্রবিদ এস্ট্রলজার ড.চিন্ময় চৌধুরী ভাষা শহীদের শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন করেছে বৌদ্ধ যুব পরিষদ-সিলেট অঞ্চল তাহিরপুর এলাহী বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল পূর্বক পূণ: নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের দাবী একুশের চেতনা হোক অবিনাশী সিলেটে বাস চাপায় ৬ পুলিশ সদস্যকে আহত হওয়ার ঘটনায় জড়িত ৩ আসামী গ্রেফতার সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ নেতা মাহফুজ আহমেদ সামসুলের জন্মদিন পালিত সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি’র অপসারণের দাবী মানববন্ধন সিলেটের মোগলাবাজার থানা পুলিশ কর্তৃক ২ ছিনতাইকারী আটক

অবশেষে সিসিক মেয়র পদে নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়ালেন আরিফ

Reporter Name
  • আপডেট করা হয়েছে শনিবার, ২০ মে, ২০২৩
  • ৬৯ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার:

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। ২১ জুন অনুষ্ঠিতব্য সিটি নির্বাচনে দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে অংশ নিবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। শনিবার বিকেলে নগরীর ঐতিহাসিক রেজিস্ট্রারি ময়দানে পূর্ব ঘোষিত জনসভায় নগরবারীর কাছে তুলে ধরেন তার ও তার দলের সিদ্ধান্তের কথা।

জনসভায়  মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আমি শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শের বিএনপির রাজনীতি শুরু করেছি। আমার জীবন থাকতে এই দলের ক্ষতি হয় এমন কোন সিদ্ধান্ত নিবো না। অনেকেই আমাকে উকিল আব্দুস সাত্তার বানানোর চেষ্টা করেছেন কিন্তু আমি সেই সুযোগ কাউকে দিতে চাই না। এই সরকারের অধীনে কোন নির্বাচন করার পরিবেশ নেই। বিশেষ করে ইভিএম নিয়ে নগরীর সাধারন মানুষ থেকে শুরু করে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা জানেন ও বুঝেন এটা ভোট কারচুপির মহা আয়োজন করা হয়েছে। আমি বাংলাদেশের সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, আমার মা জননী ও আমার শ্রদ্ধেয় আলেম-উলামাদের পরার্মশে এই নির্বাচন বর্জন করিলাম। তিনি আরও বলেন, অতীতে আপনারা আমার পাশে ছিলেন। আমি কারাগারে থাকাবস্থায় আপনারা আমার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। আমি সেই সব কথা ভুলতে পারব না। আমি আপনাদের সন্তান, আমি আপনাদের ভাই। আমি মেয়র না থাকলেও আপনাদের পাশে সবসময় থাকবো। আমাকে আপনারা ক্ষমা করে দিবেন। এ সময় আরিফ নগরবাসীকে প্রহসনের নির্বাচনের ভোট বর্জন করার আহবান জানান।এর আগে তিনি দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিজ বাসা কুমারপাড়া থেকে পায়ে হেঁটে হযরত শাহজালাল (র.) মাজারের পৌছান এবং  মাজার জেয়ারত শেষে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে ঐতিহাসিক রেজিস্ট্রারি মাঠে বক্তাতা করেন। এ সময় রেজিস্ট্রারি মাঠে দলীয় নেতা-কর্মীদের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ করা গেছে। সমাবেশ উপলক্ষে রেজিস্ট্রারি মাঠের কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে উঠে দলীয় নেতা-কর্মীদের পদচারনায়। উল্লেখ্য, বিএনপি নির্বাচনে না গেলেও গত এক মাস ধরে আরিফ তাঁর প্রার্থিতার বিষয়টি ঝুলিয়ে রেখেছিল। ফলে সিটি নির্বাচনকে ঘিরে জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটালেন আজ জনসভার বিশাল ভোটার ও দলীয় নেতাকর্মীদের সম্মুখে। গেল কয়েক দিন ধরে মেয়র আরিফ প্রশাসনের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ উত্থাপন ও দলের সিদ্ধান্তের কথা ভেবে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিতও দিয়ে আসছিলেন।  যদিও গতকাল ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের সৈয়দপুর জামে মসজিদে জুমার নামাজ শেষে মুসল্লিদের উদ্দেশে তাঁর দেয়া বক্তব্যে মেয়র আরিফ নতুন করে জল্পনা উস্কে দিয়েছিলেন আরিফ বলেছিলেন, ‘আমি সব সময় সিলেটের জনগণের পাশে ছিলাম এবং আছি। যে অবস্থানেই থাকি না কেন, প্রিয় সিলেটের জনগণের পাশেই থাকব। এর আগে গত ১৬ এপ্রিল যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতার  বিষয়ে সংকেত দিয়েছিলেন এবং তা দু-চার দিনের মধ্যে জানাবেন বলেও জানিয়েছিলেন আরিফুল হক। যুক্তরাজ্যে সফরকালে তিনি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাথে দেখা করে ওই সংকেত পেয়েছিলেন। সংকেতটি লাল, না সবুজ; অর্থাৎ নির্বাচন করবেন কি না, তার ব্যাখ্যা দিতে এক মাস সময় চেয়ে নেন। ফলে আজ দুপুরে রেজিস্ট্রারি মাঠের নাগরিক সমাবেশে আরিফুলের ঘোষনার প্রতিক্ষায় ছিলেন নগরীর ভোটার সাধারন মানুষ ও দলীয় নেতাকর্মীরা।  আগামী ২১ জুন সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবারের নির্বাচনে অংশ না নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। তবে বিএনপি নেতা আরিফুল হক নাগরিক সমাজের ব্যানারে স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে পারেন বলে শুরু থেকেই গুঞ্জন ছিল। বিভিন্ন সময়ে আরিফুল হকের বিভিন্ন বক্তব্য ও কর্মকান্ডে এই গুঞ্জন ও নগরবাসীর কৌতুহল আরো বাড়িয়ে দিয়েছিল। দুবারের নির্বাচিত মেয়র আরিফ নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়ানোয় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের মনোনিত মেয়র প্রার্থী আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর বিজয় প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেছে। যদিও জাপা’র প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাবুল ও স্বতন্ত্রসহ প্রার্থী হয়েছেন হাফ ডজন।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন